প্রকাশ : ০৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০২:২১:৫৩
রক্তঋনে কেনা, কারো দানে নয় !
‘অমর একুশের সিঁড়ি বেয়ে আমার বাংলা মায়ের কোল’
কাজী আব্দুস সামাদ : (পূর্ব প্রকাশরে পর)। প্রশ্ন হচ্ছে, আমরা কী পেরেছি রফিক, শফিক, বরকত, সালাম, জব্বারদের আত্মত্যাগের উপযুক্ত মূল্য দিতে? আমরা কি পেরেছি, মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহীদের রক্তঋণ শোধ করার উপযুক্ত পদক্ষেপ নিতে? না, তা পারিনি। বরং আমরা ক্রমেই পথভ্রষ্ট হয়েছি।

বাংলা ও বাঙালির আজন্ম শত্রুদের আরো হীন তৎপরতা চালানোর সুযোগ তৈরি করে চলেছি। বুকের রক্ত ঢেলে দিয়ে কিংবা জীবন উৎসর্গ করে, মাতৃভাষার অস্তিত্ব ও মর্যাদা রক্ষা করার নজির বিশ্বের জ্ঞাত-ইতিহাসে আর একটিও নেই।

তাই, একুশের রাজনৈতিক উত্তরাধিকার হিসেবে ‘মাথা নত না করা’র সে-উজ্জ্বল নজির সালাম, জব্বার, রফিক, বরকতেরা সৃষ্টি করে গেছেন। এই চেতনাকে প্রজন্ম পরম্পরায় সঞ্চারিত করতে হবে যাতে এটা একটি গতানুগতিক শ্লোগান-বাক্যে রূপান্তরিত না হয়। প্রতিরোধের যে দেদীপ্যমান দৃষ্টান্ত বায়ান্নর ভাষা আন্দোলনের মাধ্যমে এ-জাতির বীর সন্তানেরা স্থাপন করে গেছে, তা প্রোজ্জ্বল ইতিহাসের প্রেক্ষাপটে পাঠ করতে হবে ‘একুশ মানে মাথা নত না করা’র মতো জীবন-সঞ্চারিণী প্রবাদকে।

এটা কেবল একটি মামুলি কিংবা সাদামাঠা উপলব্ধি নয়, এটাকে পাঠ করতে হবে ইতিহাসের বীরত্বগাঁথা ও বিদ্রোহ-বিপ্লবের দার্শনিকতার ভেতর দিয়ে। আর দশটি বাজারি শ্লোগানের মতো নিত্য কথার, কথা নয়! মধ্যদিয়ে প্রকারান্তরে ‘একুশ মানে মাথা নত না করা’র মতো একটি অত্যন্ত শক্তিশালী প্রবাদকে প্রকারান্তরে নির্জীব এবং বীর্যহীন করে তোলা হচ্ছে।

একুশের যে রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট, দেশ প্রেমের যে বিরল দৃষ্টান্ত, প্রতিরোধের যে নির্ভীক প্রণোদনা এবং জাতীয়তাবোধের যে মনস্তাত্ত্বিক নির্মিতি, তার সামগ্রিক দর্শন-চিত্রের আলোকে ‘একুশ মানে মাথা নত না করা’র প্রবাদ পাঠ করতে হবে। তবেই এর যথাযথ অর্থ ও অন্তর্গত আবেদন উপলব্ধি করা সম্ভব হবে।  (আজ প্রকাশিত হলো ৫ম পর্ব-চলবে)
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধাজাতীয় শোক দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী'র বাণীআজ জাতীয় শোক দিবস : টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের অপরাধটা কি? সব খুনিদের বিচার হোক
  • রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধাজাতীয় শোক দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী'র বাণীআজ জাতীয় শোক দিবস : টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের অপরাধটা কি? সব খুনিদের বিচার হোক
উপরে