প্রকাশ : ১৯ এপ্রিল, ২০১৮ ০৩:১৮:০৭
দু’স্প্রাপ্য হয়ে উঠছে মিঠা পানির মাছ : সংরক্ষণ অপরিহার্য
বাংলাদেশ বাণী, মীর ইমরান মাহমুদ, তালা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : মাছে ভাতে বাঙ্গালী, চিরায়ত এই প্রবাদটির সাথে সব বাঙ্গালীই পরিচিত। অতি পরিচিত বাস্তবধর্মী আর শরীর উপযোগী আমীষ এর অভাব দিনে দিনে প্রকট হচ্ছে। বিশেষ করে দেশী মাছের অকাল এবং সংকট আমীষের অভাবের পাশাপাশি মিঠা পানির মাছের দীনতা দিনে দিনে স্পষ্ট হচ্ছে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বাজার ব্যবস্থা এবং দেশের খাল-বিল, পুকুর, জলাশয়সহ মৎস্যের আবাস্থল পর্যালোচনা, গবেষণা, করে দেখা গেছে মিঠা পানির মাছের শুন্যতা প্রকট আকার ধারন করেছে। যতই দিন যাচ্ছে ততোই মিঠা পানির অভাব দেখা দিচ্ছে। বোয়াল, শোল, কই, মাগুর, জেল, পুটি, মায়া, ছায়া, শিং, চ্যাং, বেতলাসহ বিভিন্ন ধরনের মিঠা পানির মাছ দুষ্প্যাপ্য হয়ে উঠেছে, বাংলাদেশ নদী মাতৃক দেশ এদেশের আর্থসামাজিক বাস্তবতায় নদ-নদী গুলোতে পূর্বের ন্যায় মৎস্যের অস্তিত্ব অনুভূত হয় না।

দেশের জনসাধারনের একটি বড় অংশ বরাবরই নদ-নদীতে মৎস্য শিকারের মাধ্যমে জীবন জীবিক নির্বাহ করে আসছে। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়গুলোতে নদ নদীতে চাহিদানুযায়ী মাছের সন্ধান না পাওয়া দীর্ঘদিনের পেশা ত্যাগ করতে বাধ্য হচ্ছে অনেকে।

তথ্যানুসন্ধানে দেখা গেছে, নদ-নদীতে মৎস্য আরোহন কারীদের একটি অংশ সবধরনের মৎস্য আরোহন করে আর এ ক্ষেত্রে বংশ বিস্তারের সম্ভাবনা বিনাশ হয় বিশেষ করে খাওয়ার অযোগ্য অর্থাৎ রেনু জাতীয় মৎস্য বিনাশ হয়। এখনেই শেষ নয় সাতক্ষীরার উপজেলা তালার কিছু কিছু এলাকাতে লোনা পানির উপস্থিতির কারনে এবং লবনাক্ততার প্রসারের জন্য মিঠা পানির মৎস্যের অস্তিত্ব অনেকটা হুমকির মুখে।

গত কয়েক বছর যাবৎ বিভিন্ন হাট-বাজারগুলোতে দেশীয় মাছ তথা মিঠা পানির মাছের দেখা মেলে না। এক সময় হাট বাজার গুলোতে কই, মাগুর, জেল, শিং, চ্যাং, বেতলার সরব উপস্থিতি ছিল বিশেষ লক্ষনীয় কিন্তু বর্তমানের চিত্র সম্পূর্ণভাবে ভিন্ন মৎস্য বিশেষজ্ঞদের সাথে আলাপ কালে জানা গেছে, লবনাক্ততার পাশাপাশি সাম্প্রতিক বছর গুলোতে আমাদের দেশের অভ্যন্তর ভাগের জলাশয়গুলো যেমন আগাম শুকিয়ে যাচ্ছে অনুরুপভাবে দীর্ঘ খরার আবরনের ফলশ্রুতিতে জলাশয়ের নি¤œস্তরে থাকা দেশীয় মিঠার পানির মৎস্যের বংশ বিস্তারের ক্ষেত্র বিনষ্ট হচ্ছে।

উল্লেখ্য চ্যাং, শোল, বোয়াল, মাগুর, কৈ বিভিন্ন ধরনের মৎস্য প্রজাতির ডিম জলাশয়ের নি¤œস্তরে থাকে পরবর্তিতে বর্ষার আগমনী বর্তায় উক্ত ডিম অবমুক্ত হয় এবং রেনু পোনার উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। কিন্তু দীর্ঘ খরার কারনে সেই সাথে জলাশয় গুলোতে মৎস্য শিকারের নামে বিষ প্রয়োগের ঘটনাও ঘটে যে কারনে মিঠা পানির মৎস্যের অকাল দেখা যাচ্ছে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে অবশ্য রুই, কাতলা, মৃগেল, চিতল, মিনার কাপ, জাপানি পুটিসহ এই সকল মৎস্যের অস্তিত্ব বিদ্যমান, কারন চিংড়ী ঘেরগুলোতে উল্লেখিত মিঠা পানির মৎস্যের ব্যাপক উৎপাদন লক্ষনীয়।

এ ক্ষেত্রে চিংড়ী ঘেরের লবনাক্ত পানিতে বোরিং, পানির মাধ্যমে দুধ নোনতা করনের মাধ্যমে সাম্প্রতিক বছর গুলোতে ব্যাপক ভিত্তিক রুই, কাতলা, মৃগেল, জাতীয় মাছের চাষ হচ্ছে, দেশী এবং মিঠা পানির মাছের সংরক্ষন প্রবাহমান অবস্থান এবং অস্তিত্ব বিনাশ হতে দেওয়া যাবে না। মিঠা পানি মৎস্যের দুষ্প্যাপ্যতা রোধ করতে হবে, নতুব আগামী প্রজন্ম ভুলেই যাবে দেশী তথা মিঠা পানির হরেক রকম মৎস্যের নাম।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • ২১ আগষ্টসহ বার বার এই দেশকে নেতৃত্বশূন্য করতে চেয়েছিল ওরা...!২১ আগষ্টের জড়িতরা এখন কোথায়? বর্বরতম গ্রেনেড হামলার দিন পুলিশের ছত্রছায়ায় প্রাসাদে ঘুমাচ্ছেন নাফ সিমান্তের অধরা ইয়াবা গডফাদাররা !রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধা
  • ২১ আগষ্টসহ বার বার এই দেশকে নেতৃত্বশূন্য করতে চেয়েছিল ওরা...!২১ আগষ্টের জড়িতরা এখন কোথায়? বর্বরতম গ্রেনেড হামলার দিন পুলিশের ছত্রছায়ায় প্রাসাদে ঘুমাচ্ছেন নাফ সিমান্তের অধরা ইয়াবা গডফাদাররা !রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধা
উপরে