প্রকাশ : ০৮ জুন, ২০১৬ ২৩:৩৮:৪৯
নড়াইলে আর ঢেকির তালে কোমর দোলেনা বাংলার নারীদের
বাংলাদেশ বাণী টোয়েন্টিফোর ডটকম, উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধি : ঢেকি নিয়ে অনেক কবি সাহিত্যিক অনেক কবিতা, গল্প লিখেছেন।  ঢেকির গুণ সম্পর্কে প্রবাদ বাক্য বাক্যও রচনা করেছেন গূনিজনেরা। “ঢেকি স্বর্গে গেলেও নাকি  ধান ভাঙ্গে”।  কিন্তু আজ তা চোখেই পড়ে না। হাতে গোনা কিছু কৃষকদের বাড়িতে ঢেকি চোখে পড়লেও আজ আর তার ব্যবহার নেই। তেমনি  নড়াইল জেলার বিভিন্ন উপজেলার প্রত্যান্ত গ্রামগুলোতে কালের আবর্তে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী ঢেকি আজ বিলুপ্তির পথে। আধুনিকতার ছোয়ায় দিন দিন ঢেকির কদরও কমে যাচ্ছে। সেই সাথে  গ্রাম বাংলার কৃষকদের বাড়ি থেকে হারিয়ে যাচ্ছে ঐতিহ্যবাহী ঢেকিতে ধান, চাল ভানা। অথচ, প্রাচীন কাল থেকেই গ্রামের গৃহবধুরা ধান ভানার জন্য ব্যবহার করতেন কোন গাছের গুড়ি দিয়ে তৈরী করা ঢেকিতে এবং  এই  ঢেকিতে ভানা প্রথম চাল দিয়েই প্রায় প্রতিটি গ্রামে চলত নবান্ন উৎসব। কিন্তু বর্তমান সময়ে আধুনিকতার ছোয়া লাগায় এই প্রথাও বিলুপ্তির পথে। এখন মানুষ ধান, চালের আটা, চিড়া,  ভাঙ্গানোর জন্য বৈদ্যুতিক মিলের উপর নির্ভর করছে। কেননা, কম খরচ, কম সময়, কম শ্রমে এই মিলে কাজ করতে পারছেন। তাই ঢেকির উপর থেকে মানুষের নির্ভরশীলতা কমেছে। তাই অনেকেই আশংখা করছেন, এমন এক সময় আসবে যে গ্রাম বাংলার কৃষকদের বাড়িতে আর ঢেকি দেখা যাবে না এবং আগামী প্রজন্মের কাছে এই ঐতিহ্যবাহী ঢেকি শুধু কাল্পনিক জগতের এক গল্প হিসাবে  ঠাই পাবে। সেই সাথে কালের আবর্তে হারিয়ে যাবে শত বছরের এই ঐতিহ্যবাহী ঢেকি।

বাংলাদেশ বাণী/কাসা/ডেস্ক/নি.প্রতি/উজ্জ্বল/নড়াইল/০৮/০৬/২০১৬. ১১:৩৫ (পিএম) ঘ.
সর্বশেষ সংবাদ
  • ২১ আগষ্টসহ বার বার এই দেশকে নেতৃত্বশূন্য করতে চেয়েছিল ওরা...!২১ আগষ্টের জড়িতরা এখন কোথায়? বর্বরতম গ্রেনেড হামলার দিন পুলিশের ছত্রছায়ায় প্রাসাদে ঘুমাচ্ছেন নাফ সিমান্তের অধরা ইয়াবা গডফাদাররা !রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধা
  • ২১ আগষ্টসহ বার বার এই দেশকে নেতৃত্বশূন্য করতে চেয়েছিল ওরা...!২১ আগষ্টের জড়িতরা এখন কোথায়? বর্বরতম গ্রেনেড হামলার দিন পুলিশের ছত্রছায়ায় প্রাসাদে ঘুমাচ্ছেন নাফ সিমান্তের অধরা ইয়াবা গডফাদাররা !রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধা
উপরে