প্রকাশ : ৩১ আগস্ট, ২০১৮ ০৪:০৩:৩৭
কেশবপুরে মরা বটগাছের ডাল ভেঙ্গে ১০ ঘণ্টা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন
বাংলাদেশ বাণী, কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি : কেশবপুর উপজেলার বেলোকাটি গ্রামে একটি ঝুঁকিপূর্ণ মরা বটগাছের ডাল ভেঙ্গে বিদ্যুতের তারের ওপর পড়ে প্রায় সময় আশপাশের ৫/৬ গ্রাম থাকে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন। প্রায় প্রতিনিয়ত ওই গাছের ডাল বিদ্যুতের তারে পড়ে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার ঘটনা ঘটলেও এ যেন দেখার কেউ নেই। গত মঙ্গলবার বিকেলেও ওই গাছের ডাল ভেঙে তারের ওপর পড়লে এলাকাটি প্রায় ১০ ঘণ্টা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। আতঙ্কে লোকজন  দিকবিদিক ছুটোছুটি করতে থাকে। এলাকাবাসি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেও কোন সুফল পায়নি।

যশোরের কেশবপুর উপজেলার বেলোকাটি গ্রামের মোসলেম উদ্দিন মোড়লের বাড়ি সংলগ্ন সরকারি রাস্তার উপর প্রায় ২’শ বছর বয়সি একটি সরকারি বটগাছ ৪/৫ বছর আগে মারা গেছে। কিন্তু সরকারের দায়িত্বশীল কর্তারা দীর্ঘদিনেও গাছটি অপসারণ করেনি। ফলে মূল্যবান ওই গাছটি ভেঙেচুরে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

গাছটি টেন্ডারের আওতায় আনলে সরকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হতো না। বর্তমান এর ডাল ভেঙে প্রতিনিয়ত পাশ দিয়ে যাওয়া বিদ্যুৎ লাইনের ওপর পড়ছে। ফলে বিদ্যুতের তার ছিড়ে ওই এলাকার ৫/৬ গ্রাম প্রায় সময় থাকে বিদ্যুৎহীন। তাছাড়া বট গাছটির দু’পাশ দিয়ে দু’টি সড়ক চলে গেছে। এর একটি গড়ভাঙ্গা বাজার ও অপরটি কেশবপুর ভায়া পাঁজিয়া মেইন সড়কে মিশেছে।

এ গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা দুটি দিয়ে প্রতিদিন শত শত হাটুরে ও পথচারীসহ যানবাহন চলাচল করে থাকে। মাঝেমধ্যে বিদ্যুতের তার ছিড়ে পড়লে আতঙ্কে জনসাধারণের চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এলাকাবাসি গাছটি অপসারণের জন্যে জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করেও কোন সুফল পায়নি। এরপরও গত মঙ্গলবার বিকেলে পুনরায় ওই বটগাছের ডাল ভেঙে বিদ্যুতের তারের ওপর পড়লে সমস্ত রাত গ্রামগুলি অন্ধকার হয়ে পড়ে। গাছটি এ মুহূর্তে অপসারণ করা না হলে যে কোন সময় বড় ধরনের দূর্ঘটনার আশংকা করছেন এলাকাবাসি।

কেশবপুর পলী বিদ্যুতের ইঞ্জিনিয়ার আমিরুল ইসলাম বলেন, ওই গাছটি অপসারণ করা জরুরী হয়ে পড়েছে। প্রায় সময় ডাল ভেঙে তারের ওপর পড়ে ছিড়ে যাচ্ছে। তখন গ্রাহকদের সেবা দিতে রাত জেগে কাজ করতে হয়।   

এ ব্যাপারে পাঁজিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মুকুল বলেন, গাছটি সরকারি রাস্তার ওপর। বিষয়টি আমি কর্তপক্ষকে অবহিত করেছি। দুর্ঘটনা এড়াতে সংশিষ্ট ইউপি সদস্যকে ওই বটগাছের ঝুঁকিপূর্ণ ডালগুলি কেটে মাটিতে ফেলে রাখার কথা বলেছি।


 
সর্বশেষ সংবাদ
  • ২১ আগষ্টসহ বার বার এই দেশকে নেতৃত্বশূন্য করতে চেয়েছিল ওরা...!২১ আগষ্টের জড়িতরা এখন কোথায়? বর্বরতম গ্রেনেড হামলার দিন পুলিশের ছত্রছায়ায় প্রাসাদে ঘুমাচ্ছেন নাফ সিমান্তের অধরা ইয়াবা গডফাদাররা !রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধা
  • ২১ আগষ্টসহ বার বার এই দেশকে নেতৃত্বশূন্য করতে চেয়েছিল ওরা...!২১ আগষ্টের জড়িতরা এখন কোথায়? বর্বরতম গ্রেনেড হামলার দিন পুলিশের ছত্রছায়ায় প্রাসাদে ঘুমাচ্ছেন নাফ সিমান্তের অধরা ইয়াবা গডফাদাররা !রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধা
উপরে