প্রকাশ : ২৩ ডিসেম্বর, ২০১৬ ১৩:৪০:১৩
তালার মাগুরা যুদ্ধ :
সহযোদ্ধাদের হারানোর সেই স্মৃতি এখনও তাড়া করে গেরিলা কমান্ডার সুভাষ সরকারকে
বাংলাদেশ বাণী, মীর ইমরান মাহমুদ, তালা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : কোন কিছুই বুঝে উঠার আগেই পাকমিলিশিয়া বাহিনী ও স্থানীয় রাজাকারদের সশ্রস্ত্র আক্রমণ। বৃষ্টির মত গুলি ছুড়তে ছুড়তে পাকমিলিটারী বাহিনীকে এগিয়ে আসতে দেখে তাদের প্রতিহত করতে পাল্টা গুলি চালাই আমরা। গুলিতে পাকবাহিনী পিছু হঠলেও অকালে ঝরে যায় আমাদের তিন মুক্তিযোদ্ধা। ঘাতকদের বুলেটবিদ্ধ হয়ে শহীদ হন মুক্তিযোদ্ধা তালার বারাত গ্রামের আব্দুল আজিজ, বাতুয়াডাঙ্গার সুশিল সরকার ও কলারোয়ার আবু বক্কর। সাতক্ষীরার তালা উপজেলা মাগুরা যুদ্ধে পাকমিলিটারী বাহিনীর সাথে যুদ্ধে কমান্ডার হিসেবে নেতৃত্বে দিয়ে তিন মুক্তিযোদ্ধাকে হারানোর সেই স্মৃতি আজও তাড়া করে ফেরে মুক্তিযোদ্ধা গেরিলা কমান্ডার সুভাষ সরকারকে।
তিন জনকে এক কবরে মাটি দেয়ার সেই ঘটনা মনে উঠতেই চোখের জল আর ধরে রাখতে পারেনি তালা উপজেলার নগরঘাটা ইউনিয়নের গোয়ালপোতা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক সুভাষ সরকার। মুক্তিযোদ্ধা সুশিল, আব্দুল আজিজ ও আবু বক্করের লাশ নিয়ে কিভাবে দাফন করা হয়েছিল তার সেই স্মৃতি যেন এখন চোখের সামনে জ¦ল জ¦ল করে ভেসে বেড়াচ্ছে। লাশ তিনটিকে সৎকার করার স্থান নিয়ে মাগুরার কয়েক হিন্দু বাড়িতে বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত ঘুরতে হয়েছে। পাকবাহিনীর হামলার ভয়ে কোন হিন্দু পরিবার লাশ দাফনে রাজি হচ্ছিল না। এক পর্যায় হিন্দু একটি পরিবার বুঝিয়ে রাজি করা হলে একস্থানে পাশাপাশি দু’টি কবর খুড়ে একটি কবরে শহীদ আবু বকর ও আব্দুল আজিজকে মাঝখানে একটি দেয়াল রেখে পাশের কবরে সুশিল সরকারকে সমাহিত করেন মুক্তিযোদ্ধারা। মাগুরা যুদ্ধে তিন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হয়েছে শুনে সেখানে আসেন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রহমত উল্লাহ দাদু, ইঞ্জিনিয়ার শেখ মুজিবুর রহমান, কামরুজ্জামান টুকু ও কর্নেল শফিউল্লাহ।
১৯৭১ সালের ২৫ নভেম্বর খুলনার কপিলমুনি যুদ্ধে যাওয়ার প্রস্তুতি নিতে তালা পাটকেলঘাটা অঞ্চলের মুক্তিযোদ্ধারা যখন মাগুরায় জড়ো হয়ে দুপুরের খাবার খাচ্ছেন হঠাৎ ১০-১৫ জন পাকমিলিটারী বাহিনীর সদস্য এবং এলাকার কয়েকজন রাজাকার গুলি করতে করতে পাটকেলঘাটার দিক থেকে মাগুরা বাজারে ঢুকে পড়ে। মুক্তিযোদ্ধা তালা অঞ্চলের গেরিলা গ্রুপের কমান্ডার সুভাষ সরকার ও মুক্তিযোদ্ধা নুরুজ্জামান এর নেতৃত্বে ১২ সদস্যের মুক্তিযোদ্ধা পাকমিলিটারী বাহিনীর সদস্যদের প্রতিহত করতে গুলি বর্ষণ শুরু করে। সুভাষ সরকার বলেন, আমাদের তিন মুক্তিযোদ্ধা গুলিতে নিহত হলেও ঘটনাস্থলে দুই পাকমিলিটারী সদস্যও গুলিবিদ্ধ হতে দেখেছিলাম। সাতক্ষীরা টেক্সটাইল মিল এলাকার শেখ নুরুজ্জামান মন্টুর পাকবাহিনীর গুলিতে ভুড়ি বেরিয়ে যায়। সেখান থেকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে নুরুজ্জামান মন্টুকে ভারতে পাঠিয়ে চিকিৎসা করেছিলাম। সে দিনের এমন সব স্মৃতির কথা বলতেই গেরিলা কমান্ডার সুভাষ সরকার ডুকরে কেঁদে উঠেন। নুুরুজ্জামান মন্টু এখন বাড়িতে চিকিৎসার অভাবে মৃত যন্ত্রণায় ছটফট করছে। দেশ স্বাধীন হলে পাটকেলঘাটায় প্রথম স্বাধীন বাংলার পতাকা উত্তোলন করা হয়।
আর ১৯৭১ সালের ২৫ নভেম্বর মাগুরা যুদ্ধে নিহত শহীদ সুশীল সরকারের মা-বাবা গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে ভারতে চলে গেছে। বঙ্গবন্ধুর ভাষনের পর গোয়ালপোতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্র সুশীল সরকার বাড়ী থেকে পালিয়ে যুদ্ধে যোগ দিয়ে দেশের জন্য জীবন দিয়েছে।
১৫ বছরের কিশোর আব্দুল আজিজ মারা যাওয়ার খবরটা তার মা-বাবাকে না দিতে পারার যন্ত্রণা এখনও বয়ে বেড়াচ্ছি। আর ২২ বছরের যুবক সবে বিয়ে করে স্ত্রীর গর্ভে সন্তান রেখে স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধে গিয়ে পাকবাহিনীর বুলেটে নিহত আবু বক্কর পরিবারকে বলতে পারিনি সে শহীদ হয়েছে। অবশ্যই পরবর্তীতে সবই যেনে যায় তিনটি পরিবার। দেশ স্বাধীনের পরে সবাই আনন্দে উদ্বেলিত হয়ে ঘরে ফিরলেও আবু বক্করের স্ত্রী স্বামীর অপেক্ষার প্রহর গুনতে গুনতে এক সময় পাথর হয়ে যায়। এরই মধ্যে বাবার মুখ না দেখেই জন্ম নেয় শহীদ আবু বক্করের কন্যা। বর্তমানে কলারোয়ার একটি গ্রামে শহীদ আবু বক্করের কন্যার বিয়ে হয়েছে। স্ত্রী অন্যাত্র বিয়ে করে ঘর সংসার করছে।
গেরিলা কামন্ডার এভাবে ৭১ এর সেই উত্তাল অগ্নিঝরা দিনের কথা বলতে গিয়ে জানান, তালার মাগুরা যুদ্ধে শহীদদের স্মরণে সেখানে এখনও স্মৃতিস্তম্ভ গড়ে উঠেনি।
উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দায়সারা গোছের দিনটি স্মরণ করা হয়। মাগুরা যুদ্ধে গেরিলা কমান্ডার সুভাষ সরকার ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন আজও আবু বক্কর, আব্দুল আজিজ ও সুশীল সরকারের পরিবার শহীদ পরিবার হিসেবে স্বীকৃতি পায়নি। স্বাধীনতার এত বছর পরও কেউ খোঁজ নেয়নি অকুতোভয়ী এই তিন বীর যোদ্ধার পরিবারের।
গেরিলা কমান্ডার সুভাষ সরকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের পর যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েন। ভারতের তকিপুরে দুই মাস গেরিলা ট্রেনিং নিয়ে ১২জন মুক্তিযোদ্ধাকে নিয়ে তালা অঞ্চলে পাকবাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেন। ভারী ম্যাশিনগান এসএমজি চালাতে তার বুক কাপেনি। সুভাষ সরকার বলেন, মুক্তিযুদ্ধে মুড়াগাছার সুজায়েত মাষ্টার, কানাইদিয়া কৃষ্ণকাটির মোড়ল আব্দুল সালাম মাগুরার শেখ ছামছুর রহমান, বারাত গ্রামের সোবহান মাষ্টার, এবং স, ম আলাউদ্দিনের নেতৃত্বে তালা কপিলমুনি অঞ্চলে পাকবাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে শত্রুমুক্ত করেছেন।
স্বাধীনতার ৪৫ বছর পর যুদ্ধাপরাধীদের বিচার এবং বিচারে শীর্ষ কয়েক যুদ্ধাপরাধীর ফাঁসির রায় দেখতে পেয়ে সুভাষ সরকারের বুকের পাথর যেন সরেগেছে। মাগুরা যুদ্ধে নিহত আবু বক্কর, আব্দুল আজিজ ও সুশীল সরকারে আত্মাযেন শান্তি পেয়েছে বললেন সুভাষ সরকার। তার আশা স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা শেখ হাসিনাকে রাষ্ট্রক্ষমতায় রাখতে দেশের সকল মুক্তিকামী মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার দাবি জানান।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধাজাতীয় শোক দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী'র বাণীআজ জাতীয় শোক দিবস : টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের অপরাধটা কি? সব খুনিদের বিচার হোক
  • রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধাজাতীয় শোক দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী'র বাণীআজ জাতীয় শোক দিবস : টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের অপরাধটা কি? সব খুনিদের বিচার হোক
উপরে