প্রকাশ : ১৫ জুলাই, ২০১৭ ০৯:৩৯:৫৯
দেশে এমএলএম প্রতারণা : প্রতারকদের শাস্তি নিশ্চিত করাটা জরুরী
বাংলাদেশ বাণী, ঢাকা : দেশের ভুয়া মাল্টিলেভেল মার্কেটিং (এমএলএম) কোম্পানি নিয়ে আগেও অনেক লেখালেখি হয়েছে। ডেসটিনি, যুবক, ইউনিপেটুইউসহ এ ধরনের কয়েকটি কোম্পানির প্রতারণা ফাঁস হয়ে যাওয়ার পর তাদের কার্যক্রমের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী জনমত গড়ে উঠেছিল।

এ পরিপ্রেক্ষিতে মাল্টিলেভেল কোম্পানির প্রতারণা রোধে আইনের কড়াকড়িও আরোপ করা হয়েছিল। মাঝখানে এ ধরনের কোম্পানির প্রতারণার খবর খুব একটি শোনা যায়নি। তবে কি আবারও শুরু হয়েছে মাল্টিলেভেল প্রতারণা? দেশে বহুস্তর বিপণন (এমএলএম) পদ্ধতির সব কোম্পানিই এখন বেআইনি। সরকার লাইসেন্স দিয়েছে, এমন একটিও এমএলএম কোম্পানি আর নেই। এমএলএম পদ্ধতিতে কেউ ব্যবসা করলে আইনত দণ্ডনীয় হবেন। কিন্তু তা সত্ত্বেও ইউনিপেটু নামের এমএলএম কোম্পানিটি আবারও প্রতারণার ফাঁদ নিয়ে মাঠে নেমেছে। এমন অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে।

অথচ সরকারের নির্দেশ সত্ত্বেও এখনও ওই কোম্পানিতে লগ্নিকৃত ২০ লাখ গ্রাহকের অর্থ ফেরত পাওয়া যায়নি। প্রতারক চক্রের নতুন তৎপরতা বন্ধ ও নিঃস্ব গ্রাহকদের বিনিয়োগের অর্থ দ্রুত ফেরত পেতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে প্রতারিত গ্রাহকদের পক্ষ থেকে আবেদন করা হয়েছে।

বিভিন্ন সময়ে আমরা দেখেছি, স্বল্প বিনিয়োগে অধিক মুনাফার লোভ দেখিয়ে এমএলএম কোম্পানিগুলো বিপুল সংখ্যক মানুষের কোটি কোটি টাকা আত্মসাত্ করেছে। টাকার হিসাবে ডেসটিনি প্রতারণা করে মানুষের পকেট কেটে ৪ থেকে ৬ হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। কিন্তু গোটা সমাজের তরুণদের জীবনের যে ক্ষতি করেছে, তার মূল্য হিসাব করে বের করা কঠিন।

এদিকে প্রতারণার কারণে যারা সর্বস্বান্ত হল তাদের এখন কী হবে? এ দেশের গ্রামীণ মানুষের সচেতনতার স্তর অনেক নিচুতে। অশিক্ষা, কুশিক্ষা ও বাস্তব জ্ঞানের অভাব মিলিয়ে তারা এমন জীবনযাপন করেন যে, তাদের সঙ্গে প্রতারণা করা কঠিন কাজ নয়। তাদের সরলতার সুযোগে দেশের আনাচে-কানাচে গজিয়ে উঠেছে অনেক মাল্টিলেভেল কোম্পানি ও মাইক্রোক্রেডিট সংস্থা।

এদের অধিকাংশই প্রতারণার জাল বিছিয়ে বেআইনিভাবে হাতিয়ে নিচ্ছে মানুষের কষ্টার্জিত টাকা। এসব সংস্থার বিরুদ্ধে আবারও রুখে দাঁড়াতে হবে। সুষ্ঠু তদন্ত হবে এবং সেই তদন্তের ভিত্তিতে আইনের আওতায় আনতে হবে দোষীদের। প্রতারণার মাধ্যমে হাজার কোটি টাকা আয় করে যদি নির্বিঘ্নে তা ভোগ করা যায়, তবে অন্যান্য প্রতারক গোষ্ঠীও নিত্যনতুন প্রতারণার জাল তৈরি করবে।

সুতরাং সরকারের উচিত হবে দ্রুত প্রতারকদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া। অতীতে সরকারের কিছু উদ্যোগ পরিলক্ষিত হলেও প্রতারিতদের টাকা ফেরত পাওয়ার সংবাদ আমাদের জানা নেই। দরিদ্র জনগণের কষ্টার্জিত উপার্জন নিয়ে এমএলএম কোম্পানিগুলোর প্রতারণার পথ বন্ধ করার এখনই সময়। এসব কোম্পানিতে বিনিয়োগকৃত টাকা গ্রাহকদের ফেরত দিতে সরকার কার্যকর পদক্ষেপ নেবে, আমরা সেই রকম প্রত্যাশাই করি।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • ২১ আগষ্টসহ বার বার এই দেশকে নেতৃত্বশূন্য করতে চেয়েছিল ওরা...!২১ আগষ্টের জড়িতরা এখন কোথায়? বর্বরতম গ্রেনেড হামলার দিন পুলিশের ছত্রছায়ায় প্রাসাদে ঘুমাচ্ছেন নাফ সিমান্তের অধরা ইয়াবা গডফাদাররা !রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধা
  • ২১ আগষ্টসহ বার বার এই দেশকে নেতৃত্বশূন্য করতে চেয়েছিল ওরা...!২১ আগষ্টের জড়িতরা এখন কোথায়? বর্বরতম গ্রেনেড হামলার দিন পুলিশের ছত্রছায়ায় প্রাসাদে ঘুমাচ্ছেন নাফ সিমান্তের অধরা ইয়াবা গডফাদাররা !রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধা
উপরে