প্রকাশ : ০৮ আগস্ট, ২০১৯ ১৩:২৫:১৫
ইয়াবা মামুনকে ছেড়ে দিয়ে টেকনাফের ওসি বলছেন ষড়যন্ত্র !
কক্সবাজার থেকে নুর কামাল : এলাকায় তিনি ইয়াবা মামুন নামে পরিচিত। দেশব্যাপী ইয়াবার বিরুদ্ধে অভিযান শুরু হলে আত্মগোপনে চলে যান তিনি। অথচ থানায় তার বিরোদ্ধে একটি মামলাও নেই। ফলে নির্বিগ্নে ইয়াবা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। সম্প্রতি তার সহযোগি মুফিদুল আলম প্রকাশ মনগ্যাইয়া বন্ধুকযুদ্ধে নিহত হওয়ার পর পুলিশতাকে আটক করে নিয়ে যায়। পরে দফারফার মাধ্যমে ছেড়ে দেয়া হয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

পুলিশের হাত থেকে রেহায় পেয়ে আবারো প্রকাশ্যে চলে আসেন তিনি। অভিযোগ রয়েছে, মাসিক মাশুহারা দিয়ে মামলা থেকে রক্ষা পাচ্ছেন তিনি। এ অবস্থায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদিচ্ছা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।
তবে, অভিযুক্ত মামুনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা না থাকায় গ্রেফতারের পরও ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন, টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাস।
তিনি বলেন, আমরা খোঁজ নিয়ে দেখেছি এলাকার কিছু লোক তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে।
অভিযুক্ত শাহ্ আজিজুর রহমান মামুন প্রকাশ ইয়াবা মামুন সাবেক ইউপি সদস্য মৃত আব্দুল মুনাফ প্রকাশ মুনাফ মেম্বারের ছেলে ও টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের যুবলীগের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক।

স্থানীয়দের দেয়া তথ্য মতে, মামুনের নগদ টাকা, নিজ এলাকায় ও কক্সবাজার শহরের পাহড়তলীতে মুল্যবান জমি ছাড়াও রয়েছে ৩টা নোহা গাড়ি, ৪টি সি.এন.জি। টেকনাফে ইয়াবার বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু হলে তিনি পালিয়ে দুবাই চলে যান। এক মাস পরে স্থানীয় এক দফাদারের মধ্যস্থতায় তিনি দেশে এসে নতুন করে পুরোদমে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। একই সাঙ্গে সক্রিয় করে তোলেন তার সিন্ডিকেট।

জানা যায়, জেলা ভিত্তিক মামুনের রয়েছে একটি ইয়াবা সিন্ডিকেট। সম্প্রতি পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন তার অন্যতম সহযোগি মুফিদুল আলম প্রকাশ মনগ্যাইয়া। মনগ্যাইয়ার মৃত্যুর পর তার সিন্ডিকেটের সবাই আত্মগোপনে চলে যায। বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় তার সিন্ডিকেটের অনেকে মামলায় আসামী করা হলেও অলৌকিক শক্তির জোরে মামলায় আসামী হিসেবে নাম আসেনি ইয়াবা মামুনের। ফলে আত্মগোপন থেকে আবারো প্রকাশ্যে চলে আসেন তিনি। এ অবস্থায় গত ২৭ জুলাই নিজ এলাকা থেকে সন্ধ্যায় তাকে তুলে নিয়ে যায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। মোটা অংকের দেন দরবার শেষে মধ্যরাতে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। অভিযোগ রয়েছে, টেকনাফের এক শীর্ষ জনপ্রতিনিধি তাকে তদবির করে ছাড়িয়ে নিয়েছেন।

মামুনের নেতৃত্বে গঠিত সিন্ডিকেটের অন্যন্য সদস্যদের মধ্যে রয়েছে হোয়াইক্যং ইউনিয়ন বিএনপি’র সহ-সভাপতি সাবেক মেম্বার নরুল কবির, সাবেক ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক কানজর পাড়া এলাকার শাহ্ জালাল, নীলা ফলের ডেইলের সৌদি ফেরত বার্মাইয়া জহির, ন্যাইখংখালীর মফিজ, যুবলীগের সহ-সভাপতি খারাংখালী এলাকার শেখ শাহ আলম, যুবলীগ যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক ঝিমংখালী এলাকার আসিফ, সাবেক ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি খারাংখালী এলাকার ফয়েজ উদ্দীন জিকু,
মহেশখালীয়া পাড়ার জাফর, বন্দুকযুদ্ধে নিহত মুফিদুল আলম প্রকাশ মনগ্যাইয়া ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন, ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা কানজর পাড়া এলাকার শাহ পরান এবং কক্সবাজার শহরের পাহাড়তলি এলাকার আরিফ।

বর্তমানে শাহ্ জালাল, শাহ পরান ইয়াবা মামলায় আসামী হয়ে পলাতক রয়েছে। দেলোয়ার হোসেন ১০ হাজার পিস ইয়াবাসহ আটক হয়ে চট্টগ্রাম জেলে রেয়েছে। ইসমাইল পালিয়ে দুবাই চলে যান। ফয়েজ উদ্দীন জিকুও জেলে রয়েছে। তবে এখনো অধরা রয়েছে কক্সবাজার শহরের পাহাড়তলি এলাকার শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী আরিফ।
শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী মামুনকে আটকের পর ছেড়ে দেয়ায় পুলিশের দায়িত্ববোধ প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে।

আজিজুর রহমান মামনু জানান, তাদের বাবার সম্পত্তি দিয়ে তিনি বৈধ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছি। তার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ আনা হচ্ছে তার কোন ভিত্তি নেই। কক্সবাজার শহরে আমার জায়গা জমি রয়েছে তাই পাহাড়তলি এলাকার অনেকের সাথে আমার সম্পর্ক রয়েছে।
টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাস গণমাধ্যমকে বলেন, ইয়াবার বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। যত বড় ইয়াবা ব্যবসায়ী হোক না কেন, তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। তবে, মামুনের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ না থাকায় তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। আমরা যে মামুনকে খুঁজতেছি সে অন্য মামুন।
শুনেছি আপনি মামুনের নিকটাত্মীয় উপজেলা চেয়ারম্যান আলমের মাধ্যমে প্রচুর টাকা নিয়ে মামুনকে ছেড়ে দিয়েছেন, এমন প্রশ্ন করলে ওসি কৌশলে বিষয়টি এড়িয়ে যান। আটকের সময় মামুনের কাছ থেকে প্রাপ্ত ইয়াবা কোথায়? জানতে চাইলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিবেদকের সাথে এ বিষয়ে আর কোন কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন।
সর্বশেষ সংবাদ
  • রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধাজাতীয় শোক দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী'র বাণীআজ জাতীয় শোক দিবস : টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের অপরাধটা কি? সব খুনিদের বিচার হোক
  • রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধাজাতীয় শোক দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী'র বাণীআজ জাতীয় শোক দিবস : টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের অপরাধটা কি? সব খুনিদের বিচার হোক
উপরে