প্রকাশ : ০৪ জানুয়ারি, ২০১৭ ০১:৩৩:০৫
দক্ষিণাঞ্চলের সাত জেলায় ব্লাস্ট আতঙ্ক! আবাদ হচ্ছে না গম
বাংলাদেশ বাণী, সাইয়েদ কাজল, বরিশাল প্রতিনিধি : বায়ুতারিত ছত্রাকবাহী ব্লাস্ট রোগের সংক্রমণে দেশে সম্ভবনাময় গমের আবাদ এবার যথেষ্ট ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। ভোলাসহ দেশের দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় সাতটি জেলায় এবার গম আবাদকে পরক্ষোভাবে নিরুৎসাহিত করছে কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ।
সূত্রমতে, গত এক যুগে দেশে গম আবাদ ও উৎপাদনের পরিমাণ ক্রমশ বৃদ্ধি পেলেও এবার কৃষি মন্ত্রণালয় লক্ষ্যমাত্রা হ্রাস করেছে সম্ভাবনাময় এই দানাদার খাদ্য ফসলটির। গত বছর রবি মৌসুমে দেশে সর্বকালের সর্বোচ্চ প্রায় ৪ লাখ ৮০ হাজার হেক্টরে আবাদ হলেও ১৪ হাজার হেক্টরের ফসল বিনষ্ট হওয়ায় উৎপাদন কমেছে প্রায় সাড়ে ১৩ লাখ টন। সূত্রে আরও জানা গেছে, চলতি মৌসুমে গত বছরের চেয়ে অন্তত ৩০ হাজার হেক্টর জমিতে গম আবাদের লক্ষ্যমাত্রা হ্রাস করা হয়েছে। ফলে উৎপাদনও অন্তত ৮০ হাজার টন হ্রাস পাবার আশঙ্কা রয়েছে। এরসাথে চলতি মৌসুমে এখনও শীতে তাপামাত্রা স্বাভাবিকের ওপরে থাকায় গমের উৎপাদনে বাড়তি বিরূপ প্রভাব পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। চলতি মৌসুমে দেশে সাড়ে ৪ লাখ হেক্টর জমিতে গম আবাদের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে লক্ষ্যমাত্রার দুই-তৃতীয়াংশ জমিতে আবাদ সম্পন্নও হয়েছে।
তবে কৃষি মন্ত্রণালয় ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের দায়িত্বশীল মহলের মতে, গত বছর দেশের সাতটি জেলায় ছত্রাকবাহী 'ব্লাস্ট' রোগের সংক্রমণ দেখা দেয়ায় সেখানে এবার রবি মৌসুমে গম আবাদকে কিছুটা নিরুৎসাহিত করা হলেও তা নিষিদ্ধ করা হয়নি। গত বছর ভোলা, মেহেরপুর, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, কুষ্টিয়া, পাবনা, ঝিনাইদহ জেলাগুলোতে ব্লাষ্ট নামক এক ধরনের ছত্রাকরোগে গমের উৎপাদনে বিপর্যয় ঘটে। এমনকি ওইসব জেলার প্রায় ১৫ হাজার হেক্টর জমির গমের আবাদ নষ্ট হয়ে যায়।
রোগের সংক্রমণ প্রতিরোধে কয়েক হাজার একর জমির ফসল আগুনেও পুড়িয়ে ফেলতে হয়েছে। আর এরই ধারাবাহিকতায় কৃষি বিজ্ঞানীদের সুপারিশের আলোকে আক্রান্ত জেলাগুলোতে এবছর গম আবাদকে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে। এমনকি এসব অঞ্চলের সরকারি খামারগুলোতে গম বীজ উৎপাদনও বন্ধ রাখা হয়েছে। কৃষি বিজ্ঞানীদের মতে বিকল্প পোষক গাছের মাধ্যমে এ রোগ ছড়াবার আশংকা থাকে। কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের তরফ থেকে আক্রান্ত জেলাগুলোতে গমের পরিবর্তে ডাল ও ভুট্টা জাতীয় দানাদার ফসল উৎপাদনে কৃষকদের উৎসাহিত করা হয়েছে। ফলে গত বছর দেশের সর্বকালের সর্বোচ্চ পরিমাণ গম আবাদ হলেও এবছর তা অনেকটাই হোচট খেয়েছে। কৃষি বিশেষজ্ঞগণের মতে, হুইট ব্লাস্টের মাধ্যমে সংক্রমণের কারণে গমের গাছ মারা গেলেও এর জীবাণু বিভিন্ন পোষক গাছে থেকে যায়। ফলে তা পুনরায় সংক্রমিত হবার আশঙ্কা থাকে। তাই পরবর্তী বছর হিসেবে চলতি মৌসুমে গমের আবাদকে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে। এটি সারা বিশ্বের কৃষি বিজ্ঞানীদের একটি প্রতিষেধক পদ্ধতি। কৃষি বিজ্ঞানীদের মতে, ব্লাস্ট বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ধানের জন্য ক্ষতিকর ছত্রাকবাহী রোগ হলেও ১৯৮৫ সালে তা গমের ওপরও সংক্রমিত হতে থাকে। তবে দক্ষিণ এশিয়াতে বাংলাদেশেই প্রথম গত বছর এ রোগের সংক্রমণ ধরা পরে। এমনকি গতবছর দেশে গমে ব্লাস্ট রোগের ছত্রাকের জিনগত চরিত্রের সাথে ব্রাজিলের জীবাণুর অনেকটাই মিল পাওয়া গেছে।
সূত্রে আরও জানা গেছে, এ ধরনের ছত্রাকবাহী রোগের একমাত্র প্রতিষেধক হচ্ছে যত দ্রুত সম্ভব গমের ক্ষেত আগুনে পুড়িয়ে ফেলা। তা করতে গিয়ে গতবছর আক্রান্ত জেলাগুলোর কয়েক হাজার কৃষক পথে বসেছে। ব্লাস্ট রোগে আক্রান্ত এলাকার কৃষকদের মতে, গমের শীষ আসার পর প্রথমে এর পাতা হলুদ রঙ ধারন করে তার ওপর কালো ছোপ ছোপ দাগ পরে। দিন কয়েকের ব্যবধানে ওইসব দাগ ক্রমশ বড় হতে থাকে এবং দ্রুত পাতা ঝলসে যেতে শুরু করে। একই সাথে তা গমের শীষেও ছড়িয়ে পরতে থাকে এবং ফলের পুরোটাই সাদা হয়ে যেতে থাকে। এভাবে অতিদ্রুত পুরো ক্ষেতের গমের শিষ শুকিয়ে নষ্ট হয়ে যায়। কৃষি বিশেষজ্ঞদের মতে, শীতের প্রকোপ কমের মধ্যে বৃষ্টিপাতের ঘটনা ঘটলে ব্লাস্টের ছত্রাকের সংক্রমণ বৃদ্ধি পায়। পাশাপাশি তাপমাত্রার সাথে অস্বাভাবিক হারে আদ্রতার ঘটনা ঘটলেও এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে। গত বছর ভোলাসহ আক্রান্ত জেলাগুলোতে সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রার তারতম্য ছিল প্রায় শতভাগের কাছাকাছি।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে নাইকো'র দুর্নীতির মামলা চলতে বাধা নেই২৫ মার্চ ‘গণহত্যা দিবস’ পালনে জাতিসংঘে প্রস্তাব দিচ্ছে বাংলাদেশবাংলাদেশে ২ দিনের সফরে আসছেন ভারতীয় সেনাপ্রধানজালিয়াতি ও শুল্ক ফাঁকি দেয়া-মুসা বিন শমসেরসহ দু'জনকে শুল্ক গোয়েন্দা অফিসে তলব বাংলাদেশ ব্যাংকে অগ্নিকান্ড : ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠনস্বাধীন দেশে প্রতিটি মানুষের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে : প্রধানমন্ত্রীদেশের উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে আগামী নির্বাচনে নৌকায় ভোট দিন : প্রধানমন্ত্রী সোনার বাংলা বিনির্মাণে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে ছড়িয়ে দিতে হবে : স্পিকার কোটা ১,২৭,১৯৮, প্রাক-নিবন্ধন ১,৮৭,৭৮০ জন-এবার অতিরিক্ত হজযাত্রী ৬০ হাজার ৫৮২ জন১৯টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন-আজ মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাগুরায় আসছেন ঐতিহাসিক শততম টেস্টে জয় : রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও স্পিকারের অভিনন্দনবাগেরহাট শিশু ছিনতাইয়ের চেষ্টা ব্যর্থ, আটক ১আজ শেষ হচ্ছে রাবি ভিসি ও প্রো-ভিসির মেয়াদ গাইবান্ধায় বাস ট্রাক মুখোমখি সংঘর্ষে নিহত ৬, আহত ১৫খিলগাঁওয়ে র‌্যাবের তল্লাশি চৌকিতে নিহত যুবক ‘আত্মঘাতী’ : র‌্যাবদেশের জঙ্গি তৎপরতা জাতীয় নির্বাচনের জন্য বড় অন্তরায় : ওবায়দুল কাদেরকলকাতায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৭ তম জন্মবার্ষিকী পালনআজ বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা ‘বঙ্গবন্ধুর’ ৯৮তম জন্মদিনবিশ্ব নেতৃবৃন্দের কাছে বাংলাদেশ এখন সম্ভাবনাময় দেশ : ওমর ফারুক চৌধুরীসরিষাবাড়ীতে ছাত্রলীগের কমিটি না থাকায় কার্যক্রম স্থবির
  • খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে নাইকো'র দুর্নীতির মামলা চলতে বাধা নেই২৫ মার্চ ‘গণহত্যা দিবস’ পালনে জাতিসংঘে প্রস্তাব দিচ্ছে বাংলাদেশবাংলাদেশে ২ দিনের সফরে আসছেন ভারতীয় সেনাপ্রধানজালিয়াতি ও শুল্ক ফাঁকি দেয়া-মুসা বিন শমসেরসহ দু'জনকে শুল্ক গোয়েন্দা অফিসে তলব বাংলাদেশ ব্যাংকে অগ্নিকান্ড : ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠনস্বাধীন দেশে প্রতিটি মানুষের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে : প্রধানমন্ত্রীদেশের উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে আগামী নির্বাচনে নৌকায় ভোট দিন : প্রধানমন্ত্রী সোনার বাংলা বিনির্মাণে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে ছড়িয়ে দিতে হবে : স্পিকার কোটা ১,২৭,১৯৮, প্রাক-নিবন্ধন ১,৮৭,৭৮০ জন-এবার অতিরিক্ত হজযাত্রী ৬০ হাজার ৫৮২ জন১৯টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন-আজ মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাগুরায় আসছেন ঐতিহাসিক শততম টেস্টে জয় : রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও স্পিকারের অভিনন্দনবাগেরহাট শিশু ছিনতাইয়ের চেষ্টা ব্যর্থ, আটক ১আজ শেষ হচ্ছে রাবি ভিসি ও প্রো-ভিসির মেয়াদ গাইবান্ধায় বাস ট্রাক মুখোমখি সংঘর্ষে নিহত ৬, আহত ১৫খিলগাঁওয়ে র‌্যাবের তল্লাশি চৌকিতে নিহত যুবক ‘আত্মঘাতী’ : র‌্যাবদেশের জঙ্গি তৎপরতা জাতীয় নির্বাচনের জন্য বড় অন্তরায় : ওবায়দুল কাদেরকলকাতায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৭ তম জন্মবার্ষিকী পালনআজ বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা ‘বঙ্গবন্ধুর’ ৯৮তম জন্মদিনবিশ্ব নেতৃবৃন্দের কাছে বাংলাদেশ এখন সম্ভাবনাময় দেশ : ওমর ফারুক চৌধুরীসরিষাবাড়ীতে ছাত্রলীগের কমিটি না থাকায় কার্যক্রম স্থবির
উপরে