প্রকাশ : ২০ অক্টোবর, ২০১৮ ০৩:৪৭:৪৬
পঞ্চগড়ে চিকিৎসা ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে : রোগীরা ছুটছে ভারত-রংপুর !
বাংলাদেশ বাণী, পঞ্চগড় থেকে কামরুল ইসলাম কামু : দেশের সর্ব উত্তরের শেষ জেলা পঞ্চগড়ে চিকিৎসা সেবায় এক ধরনের অচলাবস্থা বিরাজ করছে। সরকারী হাসপাতালগুলিতে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকসহ চিকিৎসা ব্যবস্থায় অব্যবস্থাপনা তৈরী হওয়ায় প্রায় সব ধরনের রোগের সঠিক চিকিৎসা পাচ্ছেনা। চরম দূর্ভোগে পড়েছে এ অঞ্চলের রোগী সাধারন।
পঞ্চগড় সদর আধুনিক হাসপাতালটি শুধু নামে নিয়ে পরিচালিত হচ্ছে। ফলে মানুষের কষ্টের অন্ত নেই। পাশাপাশি এহাসপাতালটি নিয়ে অভিযোগের অন্ত নেই। কোথাও গিয়েও তারা এর প্রতিকার পাচ্ছেনা। এ নিয়ে সবার মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

প্রতিদিন পঞ্চগড় সদর আধুনিক হাসপাতালটিতে শত, শত রোগী আসেন। কিন্তু ছোট-বড় সহ জটিল রোগীরা নাম মাত্র চিকিৎসা নিয়ে বাড়ী ফিরছে। আবার ক’দিন পরেই রোগী আগের অসুস্থ হয়ে পড়ছে। বিনা চিকিৎসায় ধুকে ধুকে অসহায় গরীব ও অস্বচ্ছল পরিবারের রোগীরা নিদারুন কষ্টে দিনাতিপাত করছে। এছাড়া পরিবারের কর্মক্ষম মানুষটি কাজ কর্ম করতে না পেরে পরিবারটি নি:স্ব হয়ে পড়ছে।

মাঝা ব্যথা, মাথা ব্যাথা, র্দীঘমেয়াদে জ¦র, হাঁটুব্যথাসহ নানা রকমের রোগের চিকিৎসা দিতে পারছেনা হাসপাতালটি। পঞ্চগড় দেওয়াহাটের মো. আব্দুল খালেক বলেন,আমার ভাতিজাকে সাপে কামড়িয়েছে সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলাম কোন চিকিৎসা পেলাম না। রংপুরে নিয়ে গেলাম। সেখানে চিকিৎসা করে সুস্থ করলাম। তবে পঞ্চগড় সদর আধুনিক হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা পর্যন্ত পেলাম না।

এদিকে গাইনি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পদটিও দীর্ঘদিন ধরে শূন্য রয়েছে। হাসপাতালে গাইনি রোগীরা পর্যাপ্ত সেবা না পেয়ে বিভিন্ন বেসরকারি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে গিয়ে প্রতারিত হচ্ছেন। এসব প্রাইভেট ক্লিনিকে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে গাইনি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ছাড়াই কোনোমতে সিজারিয়ান অপারেশন করে ইচ্ছামত অর্থ হাতিয়ে নেয়া হয়। আর রোগীর স্বজনরাও নিরুপায় হয়ে তাদের কাছেই ছুটে যাচ্ছেন প্রসূতি রোগীদের নিয়ে।

এদিকে মহিলাদের নানা রোগীরা বেশী হয়রাণীতে পড়ছে। তাদের রোগ নির্ণয় করতে না পারায় তারা যাচ্ছেন রংপুর অথবা ভারত। যাদের সামর্থ্য নেই তারা বিনা চিকিৎসায় ধূকে ধূকে মুত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে।

এদিকে মমূর্স রোগীদের জন্য আরো কষ্টের। তাদের ভারতে যেতে হলে সময় লাগে দুই/তিন মাস। কারন পাসপোর্ট ভিসা জটিলতা। তাই রোগীরা অনিরাপদ ব্যবস্থায় চিকিৎসা নিতে নানা দূর্ভোগে পড়ছে।

এছাড়া কিছু কিছু রোগের বিষয়ে কোন রকম সিদ্ধান্ত না দিয়েই ছেড়ে রোগীদের বাহিরে চিকিৎসা নিতে বলেন চিকিৎসকরা। ইদানিং অধিকাংশ চিকিৎসককে রংপুর, ঠাকুরগাওঁ রেফার্ড করছেন। ফলে দিশেহারা হয়ে পড়ছেন রোগী ও তার পরিবারের লোকজন।

রেফার্ড করার বিষয়ে অভিযোগ প্রতিদিন প্রতিনিয়ত আছেই। ফলে গরীব মানুষরা জমাজমি, গরু-ছাগল বিক্রি করে রংপুর-ঠাকুরগাঁও যাচ্ছে বাইরের প্রাইভেট ক্লিনিকে। সেখানে নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে একাধিক চিকিৎসককে বারবার ফ্রি  দিয়ে চিকিৎসা নিতে হয়।

প্রাইভেট ক্লিনিকে চিকিৎসা নিতে গিয়ে হয়রানীর শেষ নেই। ঘন্টার পর ঘন্টা সময় দিয়ে রোগীকে সামাল দিতে হয়। এতে পরিবারের অন্যসব সদস্যরাও রোগীতে পরিনত হয়। এতে গরীর ও অস্বচ্ছল পরিবারের রোগীর করতে গিয়ে ফতুর হয়ে পড়ছে।

জানা যায়, ১৯৮০ সালে প্রতিষ্ঠার পর ১৯৮৩ সালে ৫০ শয্যায় উন্নীত হয় পঞ্চগড় সদর হাসপাতাল। এর ২০ বছর পর ২০০৩ সালে ১০০ শয্যার আধুনিক সদর হাসপাতালে পরিণত হয় এটি। তবে দীর্ঘ দিনেও বৃদ্ধি পায়নি এখানে স্বাস্থ্যসেবার মান।
এদিকে, পঞ্চগড় সদর আধুনিক হাসপাতালের মেডিসিনি ও হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মোশারফ হোসেন চাকুরীতে অবসরে যাওয়ায় আরো সংকট তৈরী হয়েছে।

তবে সম্প্রতি জেলায় ১৪ জন চিকিৎসক নিয়োগের কথা জানালেন সিভিল সার্জন ডা. নিজাম উদ্দিন। তিনি বলেন,জেলার স্বাস্থ্য বিভাগে চিকিৎসকের অভাবে স্বাস্থ্যসেবা কিছুটা ব্যাহত হচ্ছে। বিশেষ করে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের অভাবে আমরাও বিপাকে পড়েছি। এখানে জরুরী ভাবে একজন করে গাইনি, হৃদরোগ ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক প্রয়োজন।

পাশপাশি জনবল সঙ্কটও রয়েছে। তবে সম্প্রতি নতুন নিয়োগ পাওয়া ১০জন মেডিকেল অফিসার জেলা স্বাস্থ্য বিভাগে যোগদান করেছেন। আরও চারজন চিকিৎসকের যোগদান করার কথা রয়েছে। আশা করছি, জেলায় স্বাস্থ্যসেবা বৃদ্ধি পাবে।
পঞ্চগড়ের মানুষ স্থানীয় হাসপাতালগুলিতে চিকিৎসা ব্যবস্থাকে যুগোপযোগী করে তুলতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধাজাতীয় শোক দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী'র বাণীআজ জাতীয় শোক দিবস : টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের অপরাধটা কি? সব খুনিদের বিচার হোক
  • রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধাজাতীয় শোক দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী'র বাণীআজ জাতীয় শোক দিবস : টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের অপরাধটা কি? সব খুনিদের বিচার হোক
উপরে